Uncategorized

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

বর্তমান সময়ে চুল পড়া স্বাভাবিক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে, এখন প্রত্যেকটি মানুষেরই চুল পড়া সমস্যা দেখা যায়। এই সমস্যাটি ধীরে ধীরে অনেক বড় সমস্যা হয়ে দাড়াচ্ছে।

চুল পড়া সমস্যাকে অনেকেই গুরুত্বের সাথে নেয় না। তাই দেখা যায় এক সময় সেই লোক গুলোর মাথার বেশির ভাগ চুলই পড়ে যায়।

চুল পড়ার বিষয়টি মোটেই হেস্র উড়িয়ে দেওয়ার বিষয় নাহ। যে মানুষ গুলোর চুল পড়ে তাদের অবশ্যই এ বিষয় নিয়ে চিন্তা করা উচিৎ নাহলে এই সমস্যাটি অনেক বড় হয়ে

দাঁড়াবে। চুল পড়া সমস্যা বর্তমান সময়ে একটি বিশাল সমস্যা। তাই জেনে নিন প্রাকৃতিক উপায়ে কিভাবে চুল পড়া সমস্যা দূর করবেন।

প্রকৃতিতে এরকম অনেক উপাদান রয়েছে যেগুলো আমাদের মাথার চুল পড়া রোধ করতে পারে।

প্রথমেই আসি তেল নিয়ে

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

চুল পড়া, কেন চুল পড়ে? ,হঠাৎ চুল পড়ার কারণ, নতুন চুল গজানোর উপায় , চুল পড়া বন্ধ করার সহজ উপায় , চুল পড়া বন্ধ করবেন কি ভাবে


তেল একটি প্রাকৃতিক উপাদান যা প্রাচীন কাল থেকেই আমাদের চুলের যত্ন নিয়ে আসছে। তেল বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে যা বিভিন্ন ভাবে চুলে পুষ্টি যোগায়।

এক এক ধরনের তেলে রয়েছে এক এক রকম পুষ্টি উপাদান। বিভিন্ন তেলের পুষ্টি উপাদান বিভিন্ন ভাবে চুল বড় করতে চুল পড়া কমাতে সাহায্য করে।

যেমন নারিকেল তেলে রয়েছে অনেক এন্টি অক্সিডেন্ট যা চুলকে আরো বেশি মসৃণ ও সুন্দর করে তোলে।

আমন্ড তেল এর ব্যবহারও চুলকে অনেক বেশি পুষ্টি যোগায়। আবার অলিভ অয়েল ও চুলে পুষ্টি সমৃদ্ধ করে।

এই পুষ্টি উপাদান গুলো চুলের উপকারে কাজ করে চুল পড়া রোধ করে। চুলের আগা ফাটা রোধ করে।

এছাড়াও তেল চুলের ড্যামেজ ঠেকায়। চুলের অকাল ঝরে যাওয়া রোধ করে। তেল ব্যবহারে চুল হয় আরো সুন্দর আরো ঝলমলে।

এবার আসি পুষ্টি উপাদানে

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়
চুল পড়া, কেন চুল পড়ে? ,হঠাৎ চুল পড়ার কারণ, নতুন চুল গজানোর উপায় , চুল পড়া বন্ধ করার সহজ উপায় , চুল পড়া বন্ধ করবেন কি ভাবে

চুল যেন না ঝরে এবং চুল যেন ঘন হয় সেই খেয়াল রাখার জন্য চুলকে যোগাতে হবে পুষ্টি উপাদান।

যেগুলোর অভাবেও চুল ঝরে যেতে পারে। তাই সবাইকে আমন কিছু খাবার খাওয়া উচিৎ যেগুলো শরীরের সাথে সাথে চুলকেও পুষ্টি যোগাবে।

চুল যেন না ঝরে সেই জন্য চুলকে দিতে হবে প্রোটিন, ভিটামিন এ, মাল্টিভিটামিন-ভিটামিন বি, থায়ামিন, ভিটামিন ডি, বায়োটিন ইত্যাদি।

উপরোক্ত পুষ্টি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার ফলে চুল হবে শক্ত মজবুত। চুল হবে ঝলমলে। যে খাবার খেলে প্রোটিন পাওয়া যায় যেমন শরকরা সমৃদ্ধ শাক সবজি খেতে হবে।

ভিটামিন এ,বি,ডি ইত্যাদির জন্য মাছ, মাংস, ফলমূল ইত্যাদি খাদ্য গ্রহণ করতে হবে। এই খাবার গুলো মানুষের দেহে যেমন পুষ্টি যোগাবে ঠিক তেমন ভাবে মানুষের চুলেও পুষ্টি

যোগাবে। পুষ্টি উপাদান চুলকে গোড়া থেকে করে মজবুত। আবার কিছু কিছু খাবার যেমন বাদাম, কাজু ইত্যাদি খাবার গুলো চুলের গোড়া থেকে পুষ্টি যোগায়।

কেমিক্যাল যুক্ত শ্যাম্পুর

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

কেমিক্যাল যুক্ত শ্যাম্পু প্রত্যাহার করতে হবে। কারণ কেমিক্যাল মাথার চুলের জন্য অধিক ক্ষতিকর।

কেমিক্যাল আমাদের পুরো শরীরের জন্য ক্ষতিকর। এই শ্যাম্পু গুলোতে এমন কিছু কেমিক্যাল দেওয়া থাকে যা মাথার স্ক্যাল্প পরিষ্কার করতে গিয়ে মাথার স্ক্যাল্পকে শুষ্ক করে

দেয় যার কারণে মাতাহ্র চুলগুলো উষ্ক খুষ্ক হয়ে যায়। এবং এর থেকেই শুরু হয় ড্যামেজ। এই ড্যামেজ প্রতিরোধ করতে অবশ্যই কেমক্যাল যুক্ত শ্যম্পু প্রত্যাহার করতে হবে।

অতিরিক্ত টেনশন করাও চুল পড়ার কারণ হতে পারে

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

চুল পড়া, কেন চুল পড়ে? ,হঠাৎ চুল পড়ার কারণ, নতুন চুল গজানোর উপায় , চুল পড়া বন্ধ করার সহজ উপায় , চুল পড়া বন্ধ করবেন কি ভাবে

আমরা এই চুল পড়ার সমস্যা দূর করতে হলে দুশ্চিন্তা কমাতে হবে। তাছাড়া চুল পড়া কমাতে পর্যাপ্ত ঘুম প্রয়োজন যা অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা দূর করে।

দুশ্চিন্তা কমাতে আপন কোনো ব্যক্তির সাথে আলাপ আলোচনা করতে পারেন। আপনার চিন্তার কারণ তাকে জানাতে পারেন।

এছাড়াও আরো কিছু নিয়মে চুল পড়া কমানো যায়

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

চুল পড়া, কেন চুল পড়ে? ,হঠাৎ চুল পড়ার কারণ, নতুন চুল গজানোর উপায় , চুল পড়া বন্ধ করার সহজ উপায় , চুল পড়া বন্ধ করবেন কি ভাবে

রাতে ঘুমানোর সময় তেল দিয়ে ম্যাসাজ করা। এসময় আপনি চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত তেল দিয়ে ম্যাসাজ করুন এই ম্যাসাজ করার ফলে চুল আরো বেশি মজবুত হবে।

এলোভেরা জেল ব্যবহার করেও চুল পড়া কমানো যায়

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

এলোভেরা জেল ব্লেন্ড করে চুলের গোড়ায় ১ ঘন্টা লাগিয়ে রেখে তারলর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেললে মাথার চুলকানি দূর হয় এবং চুল পড়া কমে।

শ্যাম্পুর ব্যবহার বন্ধ করার মাধ্যমেও চুল পড়া কমানো যায়

শ্যাম্পুর ব্যবহার বন্ধ করার মাধ্যমেও চুল পড়া কমানো যায়

যে শ্যাম্পু গুলো অতিরিক্ত রাসায়নিক উপাদান দ্বারা তৈরী সেই শ্যাম্পু গুলো প্রত্যাহার করতে হবে। অথবা মাথায় তেল দেওয়ার পর শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে।

চুলে চিরুনি ব্যবহার

চুলে চিরুনি ব্যবহার
চুল পড়া, কেন চুল পড়ে? ,হঠাৎ চুল পড়ার কারণ, নতুন চুল গজানোর উপায় , চুল পড়া বন্ধ করার সহজ উপায় , চুল পড়া বন্ধ করবেন কি ভাবে

ভেজা অবস্থায় চুল সবথেকে বেশি নরম থাকে এমন সময় চুলে চিরুনি ব্যবহার করা যাভে নাহ।

যদি ব্যবহার করত্রি হয় তাহলে অবশ্যই বড় কাটা যুক্ত চিরুনি ব্যবহার করতে হবে। ছোট কাটা যুক্ত চিরুনি ব্যবহার করলে চুল পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। সব থেকে ভালো হয় চিরুনি ব্যবহার না করা।

ডিমের কুসুম ও লেবুর রস

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

ডিমের কুসুমের সাথে সামান্য অলিভওয়েল ও লেবুর রস মিশিয়ে এটি চুলে ১ ঘন্টা মতো লাগিয়ে রেখে তারপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেললে চুল পড়া বন্ধ হবেই তাছাড়া চুল লম্বা করতেও এটি সাহায্য করে।

পেয়াজের রস ব্যবহার করেও চুল পড়া রোধ করা যায়

পেয়াজের রস ব্যবহার, চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

এই রস ১৫ মিনিট চুলের গোড়ায় লাগিয়ে রেখে তারপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেললে এটি চুল পড়া কমাতে সাহায্য করে।

নিমপাতা ব্যবহার করেও চুল পড়া কমানো যায়

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়,নিমপাতা

নিম পাতা সিদ্ধ করে সেই পানি ঠান্ডা করে মাথার স্ক্যাল্প ভালোভাবে ধুয়ে নিলে চুল পড়া কমে।


চুল পড়া কমাতে পুষ্টিকর খাদ্য খাওয়ার ফলে চুল পড়া কমানো যায়। খাদ্য তালিকায় শাক সবজি ফল মূল রাখলে এই খাবারের পুষ্টি গুণ চুলের গোড়ায় পুষ্টি যোগায়।

হালকা কুসুম গরম পানি ব্যবহারের মাধ্যমেও চুল পড়া রোধ করা যায়

চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়, হালকা কুসুম গরম পানি

চুলে বেশি গরম পানি ব্যবহারে বিরত থাকতে হবে। কারণ গরম পানি মাথার স্ক্যাল্পের গুরুত্বর ক্ষতি করে।

মাথার চুলের গোড়া দুর্বল ও চুলকে নিষ্প্রাণ করে দেয়। তাই চুলের যত্নে অবশ্যই কুসুম গরম পানি ব্যবহার করতে হবে।

কুসুম গরম পানি চুলকে হালকা ভাবে পরিষ্কার করে মসৃণ ও ঝলমলে করে তোলে। তাই কুসুম গরম পানি ব্যবহার উত্তম।

চুলের জন্য আলুর রস ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ

আলুর রস, চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

আলুর রসের পুষ্টিগুণ ও চুলের যত্নে কাজ করে। আলুতে রয়েছে ভিটামিন সি যা চুলে চুলের ভিটামিনের অভাব দূর করে।চুলকে রুক্ষতার হাত থেকে বাচায়।

এই ভিটামিন চুল পড়া কমায় এবং চুল গজাতে সাহায্য করে। আলুর ব্যবহারের জন্য আলুর রস পিষে বের করে সেই রস চুলের স্ক্যাল্পে ৩০ মিনিট লাগিয়ে রাখতে হবে।

তারপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। তাহলে এটি কার্যকারিতা দেখাতে পারবে। এছাড়াও ৪-৫ টা আলু নিয়ে দুই চামচ মধু এবং ডিমের কুসুম নিয়ে সেটিকে প্যাক বানিয়ে নিয়ে

সপ্তাহে ১ বার মাথায় ব্যবহার করলে চুল পড়া সমস্যা থেকে অনেকটা মুক্ত হওয়া যায়।

চুলের জন্য আমলকি ব্যবহার করা যায়

চুলের জন্য আমলকি ব্যবহার করা যায়,চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

আমলকিতে রয়েছে প্রয়োজনীয় পুষ্টিগুণ যা চুলের বিভিন্ন সমস্যা দূর করতে পারে। চুল পড়া সমস্যা রোধ করার জন্য আমলকি প্যাক ব্যবহার করা যায়।

এই প্যাকটি বানানোর জন্য ১ টেবিল চামচ আমলকি গুড়ার সাথে ১ টেবিল চামচ লেবুর রস মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগিয়ে দিন এবং ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন।

তারপর স্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। আমলকি রয়েছে প্রচুর এন্টি অক্সিডেন্ট যা চুলকে আরো বেশি ঝলমলে আর ঘন করে এবং এটি চুলের গোড়ায় কোলাজেনের মাত্রা বজায় রাখে।

ভিটামিন সি খুশকি দূর করতেও সাহায্য করে। এবং এটি লেবুর সাথে মিশে চুলের বৃদ্ধি ঘটাতেও সাহায্য করে।

আবার চুলের জন্য ব্যবহার করতে পারেন মেথি

আবার চুলের জন্য ব্যবহার করতে পারেন মেথি, চুল কেনো পরে চুল পড়া বন্ধ করার ভালো ও উপকারী উপায়

আমরা সবাই জানি মেথি আমাদের চুলের জন্য অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান। বিভিন্ন তেল কোম্পানিতেও তেলের সাথে মেথি ব্যবহার করে তেল তৈরী করে।

মেথি ব্যবহার করে পাতলা চুল ঘন করা যায়। মেথির হেয়ার প্যাক বানিয়ে নিয়ে ব্যবহার করা সর্বোত্তম।

মেথির হেয়ার প্যাক বানানোর জন্য ২ টেবিল চামচ মেথি দানা সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে তারপর সকালে ভেজা মেথি গুলোর সাথে হাফ কাপ বিশুদ্ধ পানি নিয়ে পেস্ট

বানিয়ে নিয়ে মাথায় ব্যবহার করা যায়। এটি স্ক্যাল্প এর প্রদাহ দূর করে, খুশকি কমায়, এবং চুল মজবুত করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *